1. [email protected] : Joyanta Goswami : Joyanta Goswami
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : News Point : News Point
বৃহস্পতিবার, ২৪ জুন ২০২১, ০৯:৪২ অপরাহ্ন

নিউজ পয়েন্ট সিলেট

সোমবার, ১৭ মে, ২০২১

হবিগঞ্জে প্রেম করে বিয়ে, অতঃপর হত্যা


নিউজপয়েন্ট সিলেট ডেস্কঃ প্রেমের সম্পর্কে বিয়ে হয় আঁখি আক্তার (১৯) ও বিজয় মিয়ায় (২৪)। কিন্তু বছর যেতে না যেতেই তাদের ভালোবাসার ঘরে ফাটল ধরে। আর শেষ পরিণতি হত্যা।

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ পৌর এলাকার পূর্ব তিমিরপুর গ্রামে আঁখি আক্তার (১৯) নামে এক গৃহবধূকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামী ও তার স্বামীর পরিবারের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগ এনে আঁখির স্বামীসহ তিনজনকে আসামি করে নবীগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছেন আখির পিতা ছায়েদ মিয়া।

জানা যায়, নবীগঞ্জ পৌর এলাকার পূর্ব তিমিরপুর গ্রামের ফজল মিয়ার ছেলে বিজয় মিয়া (২৪) ভালোবেসে এক বছর আগে বিয়ে করেন একই গ্রামের ছায়েদ মিয়ার মেয়ে আঁখি বেগকে (১৯)।
প্রেম করে বিয়ে করায় এবং আঁখির পরিবার ছোট জাত আখ্যা দিয়ে বিজয়ের পরিবার প্রথমে তাদের বাড়িতে জায়গা দেয়নি। কিছু দিন বিজয় ও আঁখিকে আলাদা ঘর নির্মাণ করে দেন বিজয় মিয়ার পিতা ফজল মিয়া।

অভিযোগ রয়েছে- বিয়ের কিছু দিন যেতে না যেতেই যৌতুকের জন্য আঁখি বেগমকে মারপিট করে তার স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়ি। খবর পেয়ে মেয়ের বাবা একাধিকবার তাদের বাড়িতে মেয়েকে দেখতে যেতে চাইলে স্বামীর পরিবার সেই সুযোগ দেয়নি। তবে প্রায় সময়ই স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে ঝগড়া হতো।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে স্বামী বিজয় মিয়া তার শ্বশুর ছায়েদ মিয়ার মোবাইলে ফোন করে বুধবার সকালে তাদের বাড়িতে যেতে বলেন এবং তার মেয়ে আঁখির বিচার করে মেয়েকে সঙ্গে নিয়ে যেতেও বলে বিজয়। এর কিছুক্ষণ পরই মেয়ের বাবা খবর পান তার মেয়েকে নিয়ে তার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন হাসপাতালে নিয়ে গেছেন।

ছায়েদ মিয়া হাসপাতাল গেলে মেয়ের লাশ হাসপাতালের মেঝেতে পড়ে থাকতে দেখেন। খবর পেয়ে নবীগঞ্জ থানার এসআই সমীরণ দাশের নেতৃত্বে একদল পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে প্রেরণ করেন।

বুধবার আঁখির বাবা ছায়েদ মিয়া আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগ এনে আখির স্বামী বিজয় মিয়াসহ তিনজনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এছাড়া বিয়ের ১ বছরের মধ্যে দুটি গর্ভ নষ্ট করার অভিযোগ করেন আঁখির বাবা। বর্তমানেও আঁখি ৪ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে জানান তিনি।

এদিকে এ ঘটনায় তাৎক্ষণিক বিজয় মিয়াকে আটক করে পুলিশ। পরে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখায় পুলিশ।

এ প্রসঙ্গে নবীগঞ্জ থানার ওসি মো. ডালিম আহমেদ বলেন, আঁখির স্বামীসহ তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় ইতোমধ্যে আঁখির স্বামী বিজয় মিয়াকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

আপনার মতামত দিন
এই বিভাগের আরও খবর

সিলেটের সর্বশেষ
© All rights reserved 2020 © newspointsylhet