1. [email protected] : Joyanta Goswami : Joyanta Goswami
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : News Point : News Point
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:০২ পূর্বাহ্ন

নিউজ পয়েন্ট সিলেট

শনিবার, ১৪ নভেম্বর, ২০২০

সাবেক ছাত্রদল নেতা কাউসারের বিরুদ্ধে হাজারো প্রতারনার অভিযোগ


নিউজ পয়েন্ট ডেস্কঃ কাউসার আলী
পিতা লুৎফর রহমান মল্লিক গ্রাম: সারাশিন পোস্ট বরংগাইল ইউনিয়ন মহাদেবপুর উপজেলা শিবালয় মানিকগঞ্জ। শিক্ষাগত যোগ্যতা বিএন অনার্স ম্যানেজমেন্ট কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে।

প্রথম বিয়ে: শহরবানু ৫৬ পৈতৃক নিবাস কুমিল্লা ঢাকা ভাড়া থাকতেন স্বামী সন্তান নিয়ে। দ্বিতীয় বিয়ে: নাজমা বেগম ৪২/৪৩ ঢাকার শহরে ভাড়া থাকতেন বাসায় বাসায় কাজ করতেন, তিন সন্তান স্বামী ছিলেন একজন রিকশাচালক। তৃতীয় বিয়ে লিমা বেগম৩০/৩২ গার্মেন্টসের কর্মী পূর্বেও দুই তালাক হয়ে যাওয়া মহিলা তার সন্তান একটি। চতুর্থ বিয়ে উম্মে সেলিনা আক্তার রুনা ২১ অনার্স তৃতীয় বর্ষ বাংলা বিভাগের ছাত্রী সরকারি দেবেন্দ্র কলেজ। যাকে প্রতারনা করে বিয়ে করেছে কাউসার।

এছাড়াও বহু নারী কেলেঙ্কারি ধর্ষনের অভিযোগ কাউসার জেল হাজত খেটেছেন সেগুলো কোর্টে চলমান। এলাকায় ভুমি দখল জমি খারিজ টেন্ডার পাইয়ে দেয়া সাংবাদিক বানিয়ে দেওয়ার কথা বলে বহু মানুষকে ঠকিয়ে টাকা আত্মসাত করেছে কাউসার। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সাধারণ মানুষের সাথে ঝামেলা হলে বাজে মহিলা দিয়ে মামলার ভয় দেখান কাউসার। যে কারণে মানুষ ভয় পেয়ে এসকল অত্যাচার নির্যাতন সহ্য করে। শুধু তাইনা মাত্র তিন বছর রাজনীতির দল পাল্টে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হবার পর ছনের ঘর থেকে দালান করেছেন কাউসার। গাঁজার ব্যাবসা করে কামিয়েছেন লক্ষ লক্ষ টাকা। এলাকার যুবসমাজকে নষ্ট করে তুলছে কাউসার ও তার পরিবারের সদস্যরা।

জানা যায় স্বপরিবারে মাদকের ব্যবসা করে চলছে দাপটের সাথে,কেউ প্রতিবাদ করলে তাকে মেরে ফেলা বা গুম করে ফেলার হুমকি দেয় সে। শুধু তাইনা জেলার বাইরে বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে হাতিয়ে নিয়েছে লাখ টাকা।

গত জুলাই মাসের ২৯ তারিখে আলোকদিয়া চরে সরফ মোল্লার বাড়ীতে গরু চুরি করতে গিয়ে ধরা পড়ে মাইর খায় কাউসার পরবর্তীতে ৭৩ হাজার টাকা জরিমানা দিয়ে কোনমতে মুচলেকা দিয়ে মুক্তি পেয়ে যান কাউসার। ভুয়া ফকিরান্তি কবিরাজি দেখিয়ে যৌনব্যবসা গড়ে তুলেছেন এলাকায়। তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ সাধারণ মানুষের জীবন। এমন লোক কি করে যুবলীগ নেতা হয় এ নিয়ে হাজার প্রশ্ন মানুষের মনে। উপজেলা থেকে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না জেলা থেকে তো প্রশ্নই উঠে না। কিসের এত দরদ কিসের স্বার্থে কাউসারের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না জানতে চাচ্ছে এলাকার সাধারন জনগন, প্রশ্ন উঠছে ধর্ষক ধান্দাবাজ মাস্তান কি করে যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হয়।

আপনার মতামত দিন
এই বিভাগের আরও খবর

সিলেটের সর্বশেষ
© All rights reserved 2020 © newspointsylhet