1. [email protected] : Joyanta Goswami : Joyanta Goswami
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : News Point : News Point
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭:৩৫ পূর্বাহ্ন

নিউজ পয়েন্ট সিলেট

বুধবার, ৬ জানুয়ারী, ২০২১

ডাকটিকিটে ‘পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী’


নিউজ পয়েন্ট ডেস্কঃ বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন (৪ জানুয়ারি) একটি স্মারক ডাকটিকিট প্রকাশ করেছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগ। এতে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর পরিবর্তে লেখা হয়েছে ‘পূর্ব পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী’।

বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারকে নিয়ে চলছে তীব্র সমালোচনা। বলা হচ্ছে, ‘তাহলে মুক্তিযুদ্ধের পঞ্চাশ বছর পালনের কী হবে?’, ‘রক্ত দিয়ে কেনা নাম, মশকরা করার জন্য নয়’, ‘এখন কি ইতিহাস রক্ষার জন্য আমরা বাংলাদেশের নামের জায়গায় পূর্ব পাকিস্তান ইউজ করবো?’,

ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিন রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে ডাক ভবনে এক অনুষ্ঠানে স্মারক ডাকটিকিটটি অবমুক্ত করেন মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার নিজেই। এরপর এদিন দুপুর ২টা ২৬ মিনিটে নিজের ফেসবুকে স্মারক ডাকটিকিটটির একটি ছবি পোস্ট করেন।

ক্যাপশনে লেখেন, ‘বাংলাদেশ ডাক বিভাগ বাংলাদেশ ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ডাকটিকেট প্রকাশ করেছে আজ।’ এর দুই মিনিট পর দুপুর ২টা ২৮ মিনিটে তিনি ছবিটি কাভার ফটো হিসেবেও আপলোড করেন। সেখানে এমন ডাকটিকিট করার কারণ জানতে চেয়েছেন অনেকেই। তাদের মধ্যে কেউ কেউ প্রশ্ন রেখেছেন, ‘আমরা কি পাকিস্তানে ফিরে যাচ্ছি?’, ‘‘পুনরায় ‘মুসলিম’ শব্দটি সংযোজন করা কতটুকু যুক্তি-যুক্ত?’’।

শশীমোহন রায় নামে একজন ব্যবহারকারী বলেছেন, ‘‘স্যার ‘মুসলিম ছাত্রলীগ’ থেকে মুসলিম শব্দটা বাদ দেয়া হয়েছে। বর্তমানে পুনরায় লেখার কারণে কি সাম্প্রদায়িকতা প্রকাশ পাচ্ছে না? কিংবা কেবলমাত্র একটি সম্প্রদায়কে বড় করে দেখানো হচ্ছে না? যদিও বর্তমান ছাত্রলীগে অসংখ্য সনাতনী ছাত্র-ছাত্রী রয়েছে। তাই পুনরায় ‘মুসলিম’ শব্দটি সংযোজন করা কতটুকু যুক্তি-যুক্ত? ধৃষ্টতা হলে মার্জনা করবেন।’’

এই মন্তব্যের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, ‘এটি ডাক টিকেট-ইতিহাস বিকৃত করার সুযোগ নাই-এটা মোটেই সাম্প্রদায়িকতা নয়। সাম্প্রদায়িকতা আপনার অন্তরে।’

জেসমিন ইসলাম মোহনা নামে এক জন মন্ত্রীর পোস্ট করা ছবিতে লেখেন, ‘আমরা এখন স্বাধীন বাংলাদেশ। মুসলিম শব্দটা বহু আগে ছাত্রলীগ থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। নতুন করে এই শব্দ সংযোজনের কারণ কি? আমরা কি পাকিস্তানে ফিরে যাচ্ছি?

১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া ছাত্রলীগ স্বাধীন বাংলাদেশ গঠনে রেখেছে অনন্য ভূমিকা। প্রতিষ্ঠার পর ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলন, ১৯৫৪ সালের যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, ১৯৬২ সালের শিক্ষা আন্দোলন, ১৯৬৬ সালের ছয় দফা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালের গণ আন্দোলন, ১৯৭০ সালের জাতীয় নির্বাচন, ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ এবং স্বাধীনতা উত্তর বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে ছাত্রলীগের ভূমিকা গৌরবের।

আপনার মতামত দিন
এই বিভাগের আরও খবর

সিলেটের সর্বশেষ
© All rights reserved 2020 © newspointsylhet