1. [email protected] : Joyanta Goswami : Joyanta Goswami
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : News Point : News Point
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৩৭ পূর্বাহ্ন

নিউজ পয়েন্ট সিলেট

বৃহস্পতিবার, ২০ মে, ২০২১

টিকা নিয়ে অন্ধকারে কর্তাব্যক্তিরা, বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে কবে?


করোনাভাইরাসের কারণে গত বছরের ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। এরপর পার হয়েছে প্রায় এক বছর দুই মাস। কিন্তু এখনো স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় খোলার কোনো লক্ষণ নেই। কবে খুলবে তাও জানেন না বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তাব্যক্তিরা। তবে করোনার টিকাকরণ হলে খুলতে পারে উচ্চশিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। কিন্তু শিক্ষার্থীরা সেই টিকা কবে পাবেন, তাও জানা নেই কারো।

জানা গেছে, দেশে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় আগামী ২৩ মে থেকে স্কুল-কলেজ ও ২৪ মে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার ঘোষণা ছিল সরকারের। তবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় আরেক দফায় ছুটি বাড়িয়ে আগামী ২৯ মে পর্যন্ত করা হয়েছে। তবে ২৯ মে’র পরও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলছে না বলে একপ্রকার নিশ্চিত সংশ্লিষ্টরা।

সূত্র বলছে, সংক্রমণ অব্যাহত থাকা এবং শিক্ষার্থীদের টিকার আওতায় আনতে না পারায় কবে বিশ্ববিদ্যালয় খুলবে তা সরকারের কর্তাব্যক্তি কিংবা বিশ্ববিদ্যালয় সংশ্লিষ্টদের জানা নেই। টিকার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) মাধ্যমে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সরকারকে তালিকা দিলেও টিকাদান কার্যক্রম সম্পন্ন হয়নি।

এ প্রসঙ্গে ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহ বলেন, টিকার স্বল্পতা থাকায় শিক্ষার্থীদের ব্যাপারে যেভাবে ভেবেছিলাম তা নিয়ে সন্তোষজনক পর্যায়ে যেতে পারিনি আমরা। বিষয়টি নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন জানিয়ে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে টিকা দিতে মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেছি আমরা। শিক্ষার্থীদের তালিকাও পাঠিয়েছি।

শিক্ষাব্যবস্থার সবাইকে ফ্রন্টলাইনার বিবেচনা করে টিকাদান সম্পন্ন করতে সরকারের কাছে দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, এ ছাড়া তো বিশ্ববিদ্যালয় খুলতে পারব না আমরা।

জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইন ক্লাস চলছে। তবে পরীক্ষা না হওয়ায় অনলাইন ক্লাসগুলোও কোনো কাজে আসছে না। এ পরিস্থিতিতে করোনাকালেন ২৪ মে থেকে বিশ্ববিদ্যালয় ও ১৭ মে হল খুলে দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এর আগে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের টিকা দেওয়া হবে বলে জানানো হয়। কিন্তু তিন মাস পার হলেও টিকা পাননি তারা।

এরইমধ্যে সংকটের কারণে টিকার প্রথম ডোজ দেওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। এরমধ্যে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছুটি আগামী ২৯ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। কিন্তু কবে টিকা দেওয়া হবে আর কবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলবে তা নিয়ে অন্ধকারে রয়েছেন সবাই। সব বিবেচনায় আবাসিক হল ও বিশ্ববিদ্যালয় খোলার সময় আরও পেছাতে পারে বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন।

যদিও কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ফের করোনা টিকা দেওয়ার পরিকল্পনার কথা জানিয়েছে সরকার। গত সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদের সভা শেষে এক ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ছেলে-মেয়েদের টিকা দেওয়া গেলে তাড়াতাড়ি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে। তবে কবে নাগাদ এ প্রক্রিয়া শুরু বা শেষ হবে সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানানো হয়নি।

খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সুবিধাজনক পরিস্থিতিতে এবং বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ছেলেমেয়েদের টিকা দেওয়া গেলে তাড়াতাড়ি এসব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা হবে। সরকার নির্দেশনা দিয়ে দিয়েছে, ইউনিভার্সিটি বা কলেজের যে হোস্টেলগুলো আছে সেগুলোতে অলরেডি ৪০টির মতো সংস্কার শুরু হয়ে গেছে। যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এসব কাজ শেষ করার নির্দেশনা আছে বলেও জানান সচিব।

তথ্যসূত্র-ডেইলি ক্যাম্পাস

আপনার মতামত দিন
এই বিভাগের আরও খবর

সিলেটের সর্বশেষ
© All rights reserved 2020 © newspointsylhet