1. [email protected] : Joyanta Goswami : Joyanta Goswami
  2. [email protected] : Developer :
  3. [email protected] : News Point : News Point
বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০২:৪৮ পূর্বাহ্ন

নিউজ পয়েন্ট সিলেট

রবিবার, ২৩ মে, ২০২১

১৯৭১ বাঙালিদের ওপর নৃশংসতা চালিয়েছিল, সেই পাকিস্তানকে ক্ষমা করে দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান- ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী


নিউজপয়েন্ট সিলেট ডেস্কঃ একাত্তরে যেই দেশ বাঙালিদের ওপর নৃশংসতা চালিয়েছিল, সেই পাকিস্তানকে ক্ষমা করে দিতে বর্তমান সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ‘ন্যাশনাল সলিডারিটি ফর ফ্রি প্যালেস্টাইন’ এর উদ্যোগে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ আহ্বান জানান।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি ইঙ্গিত করে ডা. জাফরুল্লাহ বলেন, আপনি যদি ইতিহাসের অন্তর্ভুক্ত হতে চান, তবে সবচেয়ে কঠিন যে কাজটি করতে হবে তা হলো কূটনৈতিক তৎপরতা। কূটনৈতিক তৎপরতা চালাতে হলে আমাদের ছোটখাটো সব ভুল-ভ্রান্তি ভুলে যেতে হবে। পাকিস্তানিরা আমাদের ওপর যে অন্যায় করেছিল তার জন্য তাদেরকে ক্ষমা করে দিয়ে তাদেরসহ তুরস্ক, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া সবাইকে নিয়ে কূটনৈতিক তৎপরতা চালাতে হবে। আর আমাদের এখান থেকে ১০ হাজার সামরিক জনবল ফিলিস্তিনিতে পাঠাতে হবে।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী মনে করেন, নির্যাতিত ফিলিস্তিনিদের পাশাপাশি কাশ্মীরি ও ভারতের মাওবাদীদেরও বাংলাদেশের সমর্থন দেওয়া উচিত। তা না হলে বঙ্গবন্ধুকে অপমান করা হবে। বঙ্গবন্ধুর সংবিধানে বলা আছে, পৃথিবীর যেখানেই আত্মরক্ষার সংগ্রাম চলবে সেখানেই আমরা তাদের পাশে থেকে সাহায্য করব।

ফিলিস্তিনের নির্মম হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় সংহতি জানিয়ে চিঠি দেওয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, এটাই প্রকৃত কথা নয়, এজন্য আপনাকে তাদেরকে (ফিলিস্তিন) অর্থায়ন করতে হবে। কূটনৈতিক তৎপরতা বৃদ্ধি করতে হবে। আমাদের ভুলভ্রান্তি সব ভুলে যেতে হবে।

সভায় সব নির্যাতনের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন দেশের বিশিষ্ট নাগরিকরা। এ সময় দেশে সব কারাবন্দিদের মুক্তির দাবি জানানো হয়। আলোচনা সভায় বিশিষ্ট নাগরিক, রাজনৈতিক ব্যক্তি, রাষ্ট্র বিজ্ঞানী, সাবেক সেনা কর্মকর্তা, সাবেক সচিব, সাংবাদিক, শিল্পীসহ বিভিন্ন শ্রেণির নাগরিকরা অংশ নেন।

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মঈনুল হোসেন বলেন, ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু নিজেকে একক নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতেই গাজায় এই নির্লজ্জ হত্যাকাণ্ড চালাচ্ছে। ইসরাইল কোনো রাষ্ট্র নয়। এটা একটা যুদ্ধ মেশিন। একে যুদ্ধের মাধ্যমেই শেষ করতে হবে।

সুজন সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার বলেন, ফিলিস্তিনে যা ঘটছে তা অত্যন্ত নিন্দনীয় ও জঘন্য অপরাধ। জায়নবাদ যেভাবে ফিলিস্তিনবাসীর সব অধিকার হরণ করেছে তার প্রতিবাদে আমাদের সোচ্চার ভূমিকা রাখতে হবে।

রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী বলেন, ফিলিস্তিনের নারী, শিশু ও সাধারণ মানুষ হত্যার যে মহোৎসব চলছে তা নিয়ে পশ্চিমা বিশ্ব তামাশা দেখছে। তাদের আচরণ অত্যন্ত প্রতারণা পূর্ণ। আমরাও এই অবিচারের বিরুদ্ধে যেভাবে সোচ্চার হওয়া উচিত ছিল সেটা করতে ব্যর্থ হয়েছি।

বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক বলেন, আমরা ফিলিস্তিনীদের প্রতি সংহতি জানানোর পাশাপাশি সব গ্রেফতারকৃত ছাত্রদের মুক্তি চাই। আমরা চেষ্টা করছি দেশ ও দেশের মানুষকে সচেতন করার জন্য। আমরা মসজিদুল আকসা সব ধর্মীয় জাতির জন্য উন্মুক্ত করার দাবি করছি। ফিলিস্তিনকে একটি স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

ফিলিস্তিনের জনগণের লড়াইয়ের সঙ্গে একাত্মতা পোষণ করে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, আমাদের লড়াইয়ের বাতি জ্বালাতে হবে। আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন ধর্মীয় কথা বলেও সাম্রাজ্যবাদের পা চাটে। এর মধ্যে অনেকেই আছেন সাহস করে করে কথা বলেন না বা বলতে চান না। আমাদের আরও সাহসী হতে হবে। সব অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে অতিথিদের কেউ কেউ সশরীরে এবং বাকিরা ভিডিও বার্তায় সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন। সভা সঞ্চালনা করেন সাবেক ছাত্রনেতা মজিবুর রহমান মন্জু।

প্রেস ক্লাবে উপস্থিত হয়ে সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য দেন- এবি পার্টির আহ্বায়ক সাবেক সচিব এএফএম সোলায়মান চৌধুরী, শিক্ষাবিদ ড. সুকোমল বড়ুয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, অধ্যাপক ডা. মেজর (অব.) আব্দুল ওহাব মিনার, সাবেক ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর, ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা সাইয়েদ কামাল উদ্দিন জাফরী, ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) হাসান নাসির, কবি ও শিল্পী মুহিব খান, ব্যারিস্টার মেজর (অব.) সরোয়ার হোসেন, লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মুস্তাফিজুর রহমান ইরান, এনপিপির চেয়ারম্যান ক্বারী আবু তাহের, কর্নেল (অব.) মোহাম্মদ আব্দুল হক, ব্যারিষ্টার আসাদুজ্জামান ফুয়াদ, ব্যারিষ্টার জুবায়ের আহমেদ ভুইয়া, বিএম নাজমুল হক, ছাত্র অধিকার পরিষদের সাদ্দাম হোসেন প্রমুখ।

ভিডিও বার্তায় সভায় সংহতি প্রকাশ করে বক্তব্য দেন- অর্থনীতিবিদ ও রাজনীতিবিদ ড. রেজা কিবরিয়া, সাবেক মন্ত্রী ও সাবেক সেনাবাহিনী প্রধান লে. জেনারেল (অব.) নুরুদ্দিন খান, সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আবুল হাসান চৌধুরী, মেজর জেনারেল (অব.) ফজলে এলাহী আকবর, সঙ্গীত শিল্পী হায়দার হোসেন প্রমুখ।

সভার শেষ পর্যায়ে মজিবুর রহমান মন্জু বাংলাদেশের মানুষের পক্ষ থেকে সংহতি স্বরূপ স্বাধীন ফিলিস্তিনের একটি পতাকা ডা. জাফরুল্লাহর হাতে তুলে দেন।

ডা. জাফরুল্লাহ সেই পতাকা তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর, ব্যারিস্টার জুবায়ের আহমদ ভূঁইয়া, এবিএম খালিদ হাসান, আনোয়ার সাদাত টুটুল, আব্দুল্লাহ আল হাসান সাকীব, ব্যারিস্টার নাসরিন সুলতানা মিলি, সাইফুল মীর্যা, নুসরাত তামান্না ফারুকী, প্রিন্স আল-আমীনসহ ছাত্র তরুণদের হাতে তুলে দেন।

নিউজপয়েন্ট সিলেট/ সবুজ শর্মা

আপনার মতামত দিন
এই বিভাগের আরও খবর

সিলেটের সর্বশেষ
© All rights reserved 2020 © newspointsylhet